গাইবান্ধায় এসিসিএফ ব্যাংক কর্মকর্তার বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ

গাইবান্ধায় এসিসিএফ ব্যাংক কর্মকর্তার বিরুদ্ধে প্রতারণার অভিযোগ

গাইবান্ধা আজিজ কো-অপারেটিভ কমার্স এন্ড ফাইন্যান্স ব্যাংক লিমিটেডের প্রধান শাখার জিএম রফিউল কাদের খন্দকার কর্তৃক জেলা শহরের পলাশপাড়ার আসাদুজ্জামান খানের কাছ থেকে বিভিন্ন একাউন্টে জমাকৃত ৯ লাখ ৪ হাজার ৬১১ টাকা প্রতারণা করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। 
লিখিত অভিযোগে জানা গেছে, আসাদুজ্জামান এবং তার পুত্র তৌফিক আসাদ খানের প্রায় ৯ লাখ টাকা বিভিন্ন খাতে গাইবান্ধা আজিজ কো-অপারেটিভ কমার্স এন্ড ফাইন্যান্স ব্যাংক লিমিটেড এর প্রধান শাখা ও ফুলছড়ি ও ওসমানপুর শাখায় আমানত নিসেবে জমা ও প্রদান করেন। বর্তমানে উক্ত টাকা ফেরত পাওয়ার জন্য ব্যাংক শাখায় যোগাযোগ করেও টাকা ফেরত না পাওয়ায় তাদের কষ্টার্জিত টাকা ফেরত পাওয়া অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। ব্যাংকের জিএম রফিউল কাদের খন্দকার ও ম্যানেজার তারেক আজিজ রাহীর যোগসাজসে এসিসিএফ ব্যাংক লিমিটেড এর চেয়ারম্যান বরাবরে অত্র অঞ্চলের যাবতীয় আমানতের টাকা কেন্দ্রীয় ব্যাংকে জমা করেছে। উক্ত ব্যাংকের টাকা বিদেশে পাচার করার অপরাধে চেয়ারম্যান কারাগারে রয়েছেন। তাদের আমানতের টাকা চেয়ারম্যান বরাবর জমা করার জন্য বর্তমানে উক্ত ব্যাংকে ফেরত দেয়ার মত কোন টাকা নেই। তাই যাতে তারা উক্ত টাকা ফেরত পায় তা তদন্তপূর্বক যথারীতি ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য বাংলাদেশ ব্যাংকের আর্থিক প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন বিভাগের মহা-ব্যবস্থাপক, জাতীয় সংসদের হুইপ, গাইবান্ধা জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, দুদক রংপুর, গাইবান্ধা পৌরসভার মেয়র সহ বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে।